শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত খবর :
অটিস্টিক শিশুদের আবাসন ও কর্মসংস্থান করবে সরকার   ||   নারীর প্রতি যৌন ও পারিবারিক সহিংসতা ক্রমাগতই বাড়ছে   ||   শান্তিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি হলেন মৃত্যুঞ্জয়ী ছাত্রনেতা ছদরুল ইসলাম  ||

সিউল ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম ফেয়ারে বাংলাদেশ দূতাবাস

ডেস্ক / ৪৯৬ বার পঠিত:
আপডেট সময় : সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
সিউল ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম ফেয়ারে বাংলাদেশ দূতাবাস

বাংলাদেশ দূতাবাস গত ২৪-২৭ জুন সিউলের কনভেনশন অ্যান্ড এক্সিবিশন সেন্টারে ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম ফেয়ারে অংশগ্রহণ করেছে। সিটিফ দক্ষিণ কোরিয়ার সর্ববৃহৎ আন্তর্জাতিক পর্যটন মেলা যা পূর্বে কোরিয়া ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ার নামে পরিচিত ছিল। এ বছর পর্যটন মেলায় ৯টি বিভিন্ন দেশের দূতাবাস ও ট্রাভেল এজেন্সিসহ মোট ২৬টি দেশ অংশ নেয়।

উল্লেখ্য, ২০১২ সাল থেকে এই মেলাটিতে বাংলাদেশ নিয়মিতভাবে ও সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে। কিন্তু, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এ বছর এই মেলায় অংশ নিতে না পারায় দূতাবাস এই মেলায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করে। ২৪ জুন কোরিয়া ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ারের চেয়ারম্যান শিন জোং মক মেলাটির উদ্বোধন করেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলামসহ মেলায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য রাষ্ট্রদূতরা, কিয়ংসাংবুক-দো কালচার এবং ট্যুরিজম কর্পোরেশনের সভাপতি, জেজু ট্যুরিজম অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান, কোরিয়া ট্যুরিজম আসোসিয়েশিনের সহ-সভাপতি, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর অন্যান্য দেশসমূহের রাষ্ট্রদূত এবং গণ্যমান্যদের সঙ্গে কোফটার চেয়ারম্যান মেলার বিভিন্ন প্যাভিলিয়ন এবং বুথ পরিদর্শন করেন। তারা বাংলাদেশের বুথ পরিদর্শনে এলে রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম তাদেরকে স্বাগত জানান। এ সময় তিনি শিন জোং মককে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প সামগ্রী উপহার দেন। পরিদর্শনকারী ব্যক্তিরা বুথে প্রদর্শিত বাংলাদেশি হস্তশিল্পের প্রশংসা করেন। পরবর্তীতে তাজিকিস্তানের রাষ্ট্রদূত এইচ ই শারিজুদা ইউসুফের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম দূতাবাসের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে বাংলাদেশের বুথটি উদ্বোধন করেন। একই দিনে মেলার মূল মঞ্চে দূতাবাসের প্রথম সচিব সামুয়েল মুর্মু বাংলাদেশের আকর্ষণীয় পর্যটন স্থানসমূহ নিয়ে একটি মনোগ্রাহী উপস্থাপনা প্রদান করেন। এরপর স্থানীয় বাংলাদেশি শিল্পী আসাদুজ্জামান খানের সাবলীল ও মনোমুগ্ধকর সংগীত পরিবেশনা উপস্থিত সকল দর্শককে বিমোহিত করে।

চার দিনব্যাপী এই মেলায় প্রায় ৪০০ জন কোরিয়ান ও বিদেশি নাগরিক বাংলাদেশের বুথ পরিদর্শন করেন এবং বাংলাদেশের পর্যটন স্থানসমূহ সম্পর্কে আগ্রহ প্রদর্শন করেন। আগত দর্শনার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশের আকর্ষণীয় পর্যটন স্থানসমূহ এবং ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প সামগ্রী সংক্রান্ত লিফলেট পোস্টার, ব্রোসিয়ার ইত্যাদি বিতরণ করা হয়। এছাড়া, বাংলাদেশের আকর্ষণীয় পর্যটন স্থানসমূহ ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য নিয়ে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্রসমূহ প্রদর্শন করা হয়। অনেকে বুথে প্রদর্শিত ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশি পোশাক পরা ম্যানিকুইনদের সঙ্গে ছবিও তোলেন। এছাড়া, দুইজন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী দর্শনার্থীদের বিনামূল্যে মেহেদি পরিয়ে দেন যা অনেক আগত দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করে। ২০২১-সিটিফ মেলায় বাংলাদেশের সফল অংশগ্রহণ ভবিষ্যতে আরও অধিক সংখ্যক বিদেশি নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমণে আগ্রহী করে তুলবে বলে আশা করা যাচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ