শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০১:২৪ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত খবর :
অটিস্টিক শিশুদের আবাসন ও কর্মসংস্থান করবে সরকার   ||   নারীর প্রতি যৌন ও পারিবারিক সহিংসতা ক্রমাগতই বাড়ছে   ||   শান্তিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি হলেন মৃত্যুঞ্জয়ী ছাত্রনেতা ছদরুল ইসলাম  ||

ব্লগার অনন্ত বিজয় হত্যা: চারজনের ফাঁসি

নিজস্ব প্রতিবেদক,সিলেট / ৩২৪ বার পঠিত:
আপডেট সময় : বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২
ব্লগার অনন্ত বিজয় হত্যা: চারজনের ফাঁসি

সিলেটে ব্লগার ও বিজ্ঞান লেখক অনন্ত বিজয় দাশ হত্যা মামলায় চারজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। রায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

এ মামলার অন্যতম আসামি মান্নান এহিয়া কারাগারে মারা যাওয়ায় এবং সফিউর রহমান ফারাবীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক নুরুল আমীন বিপ্লব আলোচিত এই হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, আবুল খায়ের ওরফে রশীদ আহমেদ, আবুল হোসেন ওরফে আবুল হুসাইন, হারুনুর রশীদ ও ফয়সল আহমদ। এদের মধ্যে শুধুমাত্র আবুল খায়ের জেলহাজতে আটক রয়েছেন। অপর তিন আসামি আবুল হোসেন ওরফে আবুল হুসাইন, হারুনুর রশীদ ও ফয়সল আহমদ প্রথম থেকেই পলাতক রয়েছেন।

এছাড়া খালাসপ্রাপ্তরা হলেন, মামলার অন্যতম আসামি শফিউর রহমান ফারাবী ও কারাবন্দি থাকা অবস্থায় মারা যাওয়া মান্নান এহিয়া ওরফে মান্নান রাহী। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বাদী পক্ষের আইনজীবী ও নিহতের ভগ্নিপতি অ্যাডভোকেট সমর বিজয় সী শেখর জাগো নিউজকে বলেন, মামলার রায়ে আমরা খুশি। আমাদের এখন চাওয়া একটাই উচ্চ আদালতে মামলার পরবর্তী কার্যক্রম সম্পন্ন করে রায় কার্যকর করা।

তবে আসামি পক্ষের আইনজীবী আব্দুল আহাদ রায়ের এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমরা ন্যায়বিচার পাইনি। এই রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করবো।

২০১৫ সালের ১২ মে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে সিলেট নগরের সুবিদবাজারের নুরানী আবাসিক এলাকার বাসা থেকে কয়েকশ গজ দূরে রাস্তায় অনন্ত বিজয় দাশকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় দায় স্বীকার করে আনসার বাংলা টিম নামে একটি নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন। নিহতের বড় ভাই রত্নেশ্বর দাশ বাদী হয়ে অজ্ঞাত চারজনকে আসামি করে মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানায় মামলা করেন। ২০১৭ সালের ৯ মে সিআইডির পরিদর্শক আরমান আলী ৬ জনকে আসামি করে আদালতে সম্পূরক অভিযোগ দেন।

অভিযোগপত্রে আসামিদের মধ্যে রয়েছেন, শফিউর রহমান ফারাবী, মান্নান এহিয়া ওরফে মান্নান রাহী, আবুল খায়ের রশীদ আহমেদ, আবুল হোসেন ওরফে আবুল হুসাইন, হারুনুর রশীদ ও ফয়সল আহমদ। ২০১৭ সালের ২৩ মে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গঠনের মাধ্যমে বিচারকাজ শুরু হয়। ২০২০ সালে মামলাটি বিচারের জন্য সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। গত ১০ মার্চ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক নুরুল আমীন বিপ্লবের আদালতে উভয় পক্ষের আইনজীবীরা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন সম্পন্ন করেন। পরে আজ ৩০ মার্চ রায় ঘোষণার জন্য তারিখ ধার্য রেখেছিলেন আদালত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ