শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৫ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত খবর :
অটিস্টিক শিশুদের আবাসন ও কর্মসংস্থান করবে সরকার   ||   নারীর প্রতি যৌন ও পারিবারিক সহিংসতা ক্রমাগতই বাড়ছে   ||   শান্তিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি হলেন মৃত্যুঞ্জয়ী ছাত্রনেতা ছদরুল ইসলাম  ||

ফেব্রুয়ারির শেষদিকে হতে পারে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড়

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৪৫১ বার পঠিত:
আপডেট সময় : বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
ফেব্রুয়ারির শেষদিকে হতে পারে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড়

চলতি মাসের (ফেব্রুয়ারি) শেষের দিকে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে ফেব্রুয়ারিতে একটি মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি।দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দিতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি এ পূর্বাভাস দিয়েছে।

বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঢাকার ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে ও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিটির নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অধিদপ্তরের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) ও বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান। বিশেষজ্ঞ কমিটির চলতি মাসের পূর্বাভাস প্রতিবেদনে জানানো হয়, ফেব্রুয়ারিতে সামগ্রিকভাবে দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বেশি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। মাসের শেষার্ধে দেশের কোথাও কোথাও ১ থেকে ২ দিন শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় হতে পারে।

এ মাসে দেশে একটি মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে জানিয়ে পূর্বাভাসে জানানো হয়, ফেব্রুয়ারিতে দিনের তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকতে পারে। এ মাসে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এবং নদ-নদী অববাহিকায় মাঝারি বা ঘন কুয়াশা এবং অন্যত্র হালকা বা মাঝারি কুয়াশা পড়তে পারে। এ মাসে দেশের সব প্রধান নদ-নদীতে স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বিরাজমান থাকতে পারে বলেও জানিয়েছে বিশেষজ্ঞ কমিটি।

জানুয়ারি মাসে সারাদেশে স্বাভাবিক (৪ দশমিক ২ শতাংশ বেশি) বৃষ্টিপাত হয়েছে জানিয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও রাজশাহী বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি এবং রংপুর, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে স্বভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টিপাত হয়েছে। পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বায়ুপ্রবাহের সংযোগ ঘটায় ১১ থেকে ১৫ ও ২২ থেকে ২৫ জানুয়ারি দেশের অনেক স্থানে হালকা বৃষ্টি বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়। এ সময় সৰ্ব্বোচ্চ ১৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত শ্রীমঙ্গলে রেকর্ড (২৬ জানুয়ারি) করা হয়।

উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তার লাভ করায় ৪ ও ৫, ১৬ থেকে ১৮ ও ২৮ থেকে ৩১ জানুয়ারি রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের অনেক স্থানে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। এ সময় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস (৩১ জানুয়ারি) রেকর্ড করা হয় বলে জানায় বিশেষজ্ঞ কমিটি।

বিশেষজ্ঞ কমিটির জানুয়ারির দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, জানুয়ারি মাসে ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন এবং অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে শূন্য দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ